Your Cart
কুট্টিকুটুমের কান্ড কারখানা

কুট্টিকুটুমের কান্ড কারখানা

Tanni for Danceof Chaos

কুট্টিকুটুম ছোট্ট এইটুকুন মেয়ে বয়েস সবে হয়েছে আট মাস।তোমরা বড়রা ভাবতেই পার এটা কিছুই না।কাট্টিমের কাছে কিন্তু এটা আটশ বছরের সমান।

এইটুকু চেহারা, এখনও চলতে পারেনা,বলতে পারেনা– তাই বলে কি পৃথিবী দেখবে না?

তখন কুটুম আরও ছোট ছিল, মাকে ডাকত। চ্যাঁ চ্যাঁ করলেই মা বুঝতে পারত।কাটুম তখন খেত আর ঘুমাত। মায়ের বুকের মধ্যে গুজি সুজি মেরে — একদম পেটের ভিতরে থাকার মত আরাম। কিন্তু কুটুম এখন বড় হয়ে গেছে। কুটুম এখন বসতে পারে,এগোতে পারে, পিছতে পারে।এত বড় পৃথিবীর সব যেন দেখতে হবে ওকে। উঁচু নীচু তাক,বাক্স, কোথায় কি আছে।কাটুমের খেতেও খুব ভাল লাগে।বাবা মা যা দেয় খেয়ে নেয়।কত কিছু আছে — নরম নরম আলু,পাস্তা,লাল সবজি,হলুদ সবজি, সবুজ সবজি, পাঁউরুটি,পীনাটবাটার, স্ট্র্যবেরী কাটুম নেয়,খায় আর ফেলে।

মা কাটুমকে ভাতু দেয় তবে ভাতুগুলো এত্তো ছোট — কাটুম তুলতেই পারেনা। তবে ওই দিয়ে খেলতে পারে।মা কাটুমের খেলার সাথী। বাবা যখন থাকেনা,তখন মা করত খেলে।কাটুমের চারপাশে ঘুরে ঘুরে নাচে।কাটুম গড়িয়ে গড়িয়ে মার কাছে যায়।মা কাটুমের সবচেয়ে ভালো বন্ধু।থালা থেকে মা কাটুমকে খেতে দেয়, আইসক্রিম চেটে নিতে দেয়, দুষ্টুমি করতে দেয়।মার কোলে সবচেয়ে মজা।আরও মজা মা যখন রান্না করে। ঘুরে ঘুরে নাচতে চায় আর গাইতে চায়।মা খালি কোথায় জয়েন করবে করবে বলছে।কাটুমকে ছেড়ে মা যাবে কেন??কাটুম ছাড়বেই না। মাকে চেপে ধরে রাখবে। তাইতো মা চোখের আড়াল হলেই কাটুম কেঁদে নেয়।মা ছাড়া চলবে কি করে??

কাটুম জানে তবে মা ওকে ছাড়বেই না, তাইতো কাটুম মনের আনন্দে দুষ্টুমি করে বেড়ায়।।

………..

মার দুধ খেয়েই, সকালে উঠেই শুরু হয় হইহই। মা আজকাল সেজেগুজে অফিস যায়। কুটুম বাবার কাছে মজায় থাকে। তাপ্পর মা এলে, সবাই মিলে কি খেলা, কি খেলা। এখন তো সামার। তিনজনে মিলে হাটতে যায়। কাটুমের দিন আর রাত ভরিয়ে রাখে মা আর বাবা।

 কখন কখন ঠাকুমা আর দাদু আসে। কাটুমের সবচেয়ে প্রিয় দাদান আর দিদান অনেক দূরে থাকে। প্লেনে চড়ে যেতে হয়। কাটুম বড় হয়ে দাদান আর দিদানকে কোলে করে নিয়ে আসবে ওর কাছে। দাদান যেমন এখন ওক কোলে নিয়ে ঘোরে, ও তখন দাদানকে কোলে করবে। দাদান তখনতো বুড়ো হবে।